সাকিব আল হাসান আসলেই মিশুক নাকি অহংকারী, সাকিব আল হাসানের ২০১৬ সালের ইন্টারভিউ হোক বা ২০২০ সালের রিসেন্ট ইন্টারভিউ হোক। আপনি যেইটাই দেখেন, উনি সবসময়ই বলে এসেছেন দুরের মানুষ যারা আমাকে অহংকারি বলে বা মিশুক নয় বলে। তাদের কথায় আমি কখনো রাগ করিনা ৷ কারন তারা আমাকে ত কাছ থেকে দেখেনা। যারা আমার কাছে থাকে খেলোয়াড়েরা বা অন্য যারা আছে তারা কি বলে সেটাই আসল ব্যাপার। হ্যা সাকিব আল হাসান সম্পর্কে তার আশেপাশের জুনিয়ররা কি বলে তা কিছু দিলাম।

সাকিব আল হাসান আসলেই মিশুক নাকি অহংকারী, আমার যখন ওই ম্যাচে,একটা জিনিস না বললেই নয়, ক্যাপ্তান যখন বলটা আমাকে দিয়েছে, তখন সাকিব ভাইয়ের একটা কথা আমার কাছে খুবই শক্তিদায়ক মনে হয়েছে,যে রুবেল সারা বিশ্বের মানুষ তোর দিকে তাকিয়ে আছে,সাথে দেশের মানুষ ও, তুই দেশের জন্য হলেও কিছু কর না হয় নিজের জন্য হলেও কিছু একটা কর!

—-রুবেল হোসেন!

সাকিব ভাই একটা কথায় আমাকে বলছিলো,তুমি জাস্ট সিংগেল রোটেট করে খেলতে থাকো খেলতে থাকো,যখন নার্ভাস থেকে বের হয়ে আসি তখন আমার খেলাটা খেলতে হচ্ছে, বাট আমার কাছে মনে হয় ওই ইনিংসে আমার যত না ক্রেডিট তারচেয়ে বেশী ক্রেডিট সাকিব ভাইয়ের!কারণ ওই টুকু কিছু কথা আর সাকিব ভাই যেভাবে বোলারদের ফেইস করতে ছিলেন এই জিনিস টা আমাকে নন স্টাইক পান্ত থেকে আমাকে খুবই সাহায্য করেছে!”

—-লিটন দাস!

সাকিব ভাই দোড় দিয়ে আসছে,বলে না ঠিক আছে, তুই মনে কর আজকের ম্যাচে তোর একটা হিরো হওয়ার চান্স আছে কিন্তু জিরো হওয়ার চান্স নেই,কারন তুই মেইন বোলার না! আজকে তুই যদি ম্যাচ জিতাইতে পারস বাংলাদেশের মানুষের কাছে হিরো হবি!তো আমি এটা মাথায় রেখে ৫ নাম্বার বলটা করতে গেছি ওই বলে মনে হয় আউট হয়েছিলো!”

—-সৌম্য সরকার!

সাকিব ভাই আমার সবচেয়ে প্রিয়। উনি খুব সোজাসাপ্টা এবং সরল, পেছনে কথা বলা পছন্দ করেন না। সবসময় খেলোয়াড়দের জন্য দোয়া করতে বলেন। উনি বলেন- তুমি যদি একজনের জন্য দোয়া করো দেখবা ঐ দোয়া তোমার দিকেই আসবে। এই কথাটা আমার কানে বাজে।”

—-এনামুল হক বিজয়

জাতীয় দল থেকে বাদ পড়ার পর কারো ফোন পাইনি। আমি অনেকেরই ফোন আশা করেছিলাম। আমাকে কেউ ফোন দেয়নি। আমাকে একজন ফোন দিয়েছিল, সেটা হচ্ছে সাকিব ভাই।’
জাতীয় দল থেকে বের হয়ে যাওয়ার অনুভূতি জানিয়ে নাসির বলেন, ‘আমি সাকিব ভাইয়ের কথা বলবো। শুধু আমি না সাকিব ভাইয়ের যত জুনিয়র ক্রিকেটার আছে, সিনিয়র ক্রিকেটার আছে তাদের জিজ্ঞেস করবেন সাকিব কেমন হেল্পফুল। সবাই বলবে সেটা।”

—-নাসির হোসাইন

সাকিব আল হাসান লাস্ট ইন্টারভিউতে এটাও বলতে চেয়েছেন বাংলাদেশ টিমের মধ্যে জুনিয়রদের সাথে সবচেয়ে ফ্রেন্ডলি সম্পর্ক হলো সাকিবের এবং সে বিষয়ে তিনি অন্তত কনফিডেন্ট ছিলেন। প্রমাণগুলাও পাওয়া যাচ্ছে।

আকবর, সাইফ সহ বিভিন্ন ক্রিকেটার এবং তরুনদের আইডল সাকিব আল হাসান।

আরও পড়ুন- সাকিব বাংলাদেশের ক্রিকেটের ধারণাই বদলে দিয়েছেন!

“খেলা সংক্রান্ত সকল সাম্প্রতিক খবর জানতে লাইক করুন আমাদের Facebook পেজ অথবা ফলো করুন Twitter আর সাবস্ক্রাইব করুন YouTube”

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here